– শোন না…

– বল…

– কেন গান ছেড়েছিস প্লিজ বল। for old times’ sake..

– তুই যেদিন চলে গিয়েছিলি সেদিন এর পর থেকে আর গান গাইনি আমি।

– কেন? গাস নি কেন?

– শাস্তি দেওয়ার জন্যে।

– কাকে? কীসের শাস্তি?

– কাকে সেটা জানিনা। তুই আমার গান খুব ভালোবাসতিস তাই… গান গাওয়া বন্ধ করে দিলাম ওই দিন এর পর।

– তুই জানিস আমার কোনো উপায় ছিল না। বাড়ি থেকে জোর করছিল। তুই তখনও বিয়ে করার জন্য তৈরী ছিলি না।

– ২২ বছর বয়স ছিল তোর। ২২। এই বয়সে লোকে পড়াশুনো করে। আর তুই বিয়ে করতে চলে গেলি।

– আরে আমিই কী করব? যার বাড়ির যেরকম নিয়ম। আর তাছাড়া মেয়েদের এই সময়ই…

– চুপ কর। Please চুপ কর। মেয়েদের বলে কিছু হয় না এখন। ২০১৭ সালে দাঁড়িয়ে যারা নিজের মেয়ের ২২ বছর বয়সে জোর করে বিয়ে দেয় তারা পাতি অশিক্ষিত।

– তুই আবার আগের মত করছিস। আবার বাবা-মা কে অপমান করছিস।

– আমি কাকু-কাকিমা কে অপমান করছি না। আমি শুধু চোখে আঙুল দিয়ে সিস্টেম এর গলদ টা তোকে চোখে আঙুল দিয়ে দেখানোর চেষ্টা করছি।

– হুম।

– Sorry. ভুল করে মেসেজ করে ফেলে তোকে হয়তো অনেক বেশী কিছু বলে ফেললাম।

– একটা গান কর।

– What????

– একটা গান কর। শুনতে ইচ্ছে করছে।

– পাগল নাকি তুই? শেষ গান করেছি ২০০৯ তে। তারপর কখনও ভুলে গুনগুনও করিনি। আর তুই বলছিস গান করতে?

– যার ভেতরে গান থাকে সে চাইলেই গান করতে পারবে। It doesn’t matter কত দিন আগে গেয়েছে।

– সে যাই হোক আমি গান করতেও চাই না এখন।

– You are lying.

– I’m not.

– Yes you are.

– তুই গান করতে চাস। তোর খুব ইচ্ছে গান করার। কিন্তু পারিস না। কারন একসময় নিজেকে শাস্তি দেওয়ার জন্যে ঠিক করেছিলি আর কখনও গান গাইবি না।

– কি সব আবোল তাবোল বকছিস??

– আর এই ব্যাপার টা তোকে আরও কষ্ট দিচ্ছে যখন তুই রেডিও তে অনুষ্ঠান করছিস অথচ গান গাইতে পারছিস না।

– না। না। এসব কিছু না। ভুল ভাল বলিস না।

– শোন অনি… হ্যাঁ এই নামেই আমি ডাকবো তোকে… তোকে আমার চেয়ে ভালো কেউ চিনতো না আগেও। আর এখনও তুই একটুও বদলাস নি। একইরকম জেদি, একরোখা মনোভাবের রয়ে গেছিস। আর আজ তুই একেবারেই ভুল করে আমায় পাঠাস নি মেসেজ টা। তুই চেয়েছিলি আমি পড়ি ওটা। তুই চেয়েছিলি আমি জানি যে তুই গান গাস না আর। তুই চেয়েছিলি তোর কষ্টের কিছুটা ভাগ যেন আমি নিই।

– এই আমাকে এখন বেরোতে হবে। অনুষ্ঠান আছে ১০ টা থেকে।

– নিশ্চয় যাবি। তবে তার আগে একটা গান গা। ৮ বছর হয়ে গেছে অনি। আর নিজেকে কষ্ট দিস না এভাবে। নিজের প্রতিভাটা এভাবে নষ্ট হতে দিস না। এরকম গলা নিয়ে খুব কম মানুষ জন্মায় রে। So Please… please…. একটা গান গা। একটা…

– টাটা এখন। ভালো থাকিস।

– Okay.

– রেডিও টা কানে রাখিস।

– রাখবো। আমি জানি তুই গাইবি আজ।

অনিকেতের সেদিন সত্যি গান করেছিল রেডিও তে।

অনিকেতের গানঃ https://soundcloud.com/ arnab-mondal-555528193/ aniketer-gaan

[শেষ]

তবু মনে রেখো ৪ – দ্বিতীয় পর্ব

Post navigation


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *