সকালে ঘুম থেকে উঠে থেকেই অভিজিৎবাবুর মন টা খারাপ হয়ে রয়েছে। কারন টা খুব ব্যক্তিগত যদিও তাও ওঁর অনুমতি নিয়েই বলছি। অভিজিৎবাবু ঘুম ভাঙার পর ওঁর স্ত্রীর গলায় আজ একটা ভালোবাসার দংশন দেখতে পেয়েছেন। মানে যাকে বলে Love bite. কিন্তু গত কয়েকদিনে ওঁর সাথে ওর স্ত্রীর শারীরিক সম্পর্ক হয়নি এটা উনি হলফ করে বলতে পারেন। কারন এরকম একটা ব্যাপার উনি ভুলে যাবেন এটা খুব অস্বাভাবিক। সুতরাং অনেক ভেবেই বাকি যেটা পড়ে রইলো সেটাকেই ধরে নিতে হচ্ছে।

তবে সেটাও ঠিক যেন বিশ্বাস করাতে পারছেন না নিজেকে। প্রায় ১৭ বছর হল ওঁর বিয়ে হয়েছে। এতদিন একবারের জন্য মনে হয় নি ওর স্ত্রী অন্য কারুর সাথে…. কিন্তু কিই বা করা যাবে! পরিবর্তন তো মানুষেরই হয়। একবার ভাবলেন স্ত্রী কে সরাসরি জিজ্ঞেস করবেন! তারপর মনে হল যদি বলে কোন পোকায় কামড়েছে তখন? তখন তো আর কিছু বলার থাকবে না। তবে অভিজিৎবাবু ভালো করেই জানেন পোকার কামড় ওরকম কখনো হয় না। Love Bite জিনিসটার সাথে খুব ভালোভাবেই পরিচিত উনি। নিজে একসময় ওতে expert ছিলেন বলা যায়। কিন্তু বিয়ের পর আস্তে আস্তে যা হয় আর কি। আকর্ষন টা যেন কমতে থাকে দু’জনের মধ্যে। আর এখন এসব ভালো লাগে না।

সন্ধ্যের দিকে একটা অদ্ভুত ব্যাপার হল। উনি সোফায় বসেছিলেন আর টিভির চ্যানেল বদলাচ্ছিলেন বার বার। হঠাৎই একটা ইংরেজী চ্যানেলের সিনেমায় ওর চোখ আটকে গেল। সিনেমাটা একটা ভ্যাম্পায়ারের সিনেমা। ভ্যাম্পায়ার Concept টার সাথে উনি খুব ভালোভাবেই পরিচিত। ছেলেবেলায় বাম স্ট্রোকার এর একটা গল্পে পড়েছিলেন। ভ্যাম্পায়ার রা মানুষের বা অন্যান্য প্রানীর রক্ত পান করে, তাদের আয়নায় প্রতিবিম্ব দেখা যায় না এবং তারা যাদের রক্ত খায় তারাও নাকি আস্তে আস্তে ভ্যাম্পায়ার হয়ে যায়। ওঁর হঠাৎ খেয়াল হল ভ্যাম্পায়ার কামড়ালে গলায় যেরকম দাগ হয়, ওর স্ত্রীর গলার দাগটা ঠিক সেরকম না!?

ওর স্ত্রী ওনাকে cheat করেছে এটার চেয়ে এই যুক্তিটা ওঁর কাছে বেশী গ্রহনযোগ্য মনে হল। এবং এটা মনে হওয়ার পর থেকেই গা হাত পা যেন ঠান্ডা হয়ে আসতে থাকল অভিজিৎবাবুর।
রাত্রে খাওয়ার পর স্ত্রী ওকে একটা গ্লাস দিয়ে বললেন ‘নাও ওষুধটা খেয়ে ঘরে গিয়ে শোও; আমি আসছি।’

কি ওষুধ, কিসের ওষুধ কিছুই বুঝতে পারলেন না অভিজিৎবাবু। গ্লাসের দিকে তাকিয়ে দেখলেন লাল রঙের একটা তরল পদার্থ। রক্ত নাকি? বুকের ভেতরটা ধক্ করে উঠল ওঁর। তাহলে সত্যিই ওর স্ত্রী ভ্যাম্পায়ার হয়ে যাচ্ছেন এবং ওকেও কি রক্ত খাওয়ানোর চেষ্টা করছেন! খুব সন্তর্পনে গিয়ে বেসিনে ফেলে এলেন পুরো গ্লাস টা।

আলো নিভিয়ে বিছানায় শুয়ে এটা সেটা ভাবছেন এমন সময় নিজের স্পর্শকাতর অঙ্গের কাছে একটা হাতের ছোঁয়া পেয়েই চমকে উঠলেন উনি। তারপরেই ওর স্ত্রীর বিরক্তিভরা গলা – “কী গো? এখনো সব পরে আছো কেন?”

মানে টা কি? ওকে আজকেই Vampire এ পরিনত করে দেবে নাকি? একটা ঘোরতর ষড়যন্ত্র চলছে বুঝতেই পারছেন উনি। তাও শেষবারের মত মন শক্ত করে স্ত্রী কে বললেন, “নীলিমা, আয়নার সামনে জলের বোতল টা আছে একটু দেবে?”

উনি খুব ভালো করেই জানেন ওখানে কোনো জলের বোতল নেই। কাজেই ওটা খুঁজতে গেলেই স্ত্রী কে আলো জ্বালাতে হবে। তার পরে আয়না দেখলেই উনি বুঝতে পারবেন ওর ধারনা সত্যি না মিথ্যে।

আলো জ্বালানো হল। নাহ! কোনো প্রতিবিম্ব নেই আয়নাতে। বুঝতে পারলেন আর দেরী করা যাবে না। ঝড়ের বেগে ঘর থেকে বেরিয়ে জুতো টা পায়ে দিয়েই ছুটলেন অভিজিৎ বাবু। ওর স্ত্রী তখন চেঁচাচ্ছেন, “আরে কোথায় যাচ্ছো, দাঁড়াও!”

আর দাঁড়াও। অভিজিৎবাবু তখন দৌড়চ্ছেন। উনি জানেন, না দৌড়লে উনি বাঁচবেন না। টানা মিনিট ১৫ দৌড়োনোর পর থামলেন অভিজিৎ সরকার। হাঁফিয়ে গেছেন খুব। একটু দম নিতে হবে। হঠাৎ পকেটে একটা আওয়াজ হতেই বুঝতে পারলেন একটা মেসেজ ঢুকলো। পকেট থেকে ফোনটা বের করে দেখলেন মেসেজ এসেছে Amazon থেকে। মেসেজ টা এইরকমঃ “Hello Mr. Abhijit, has our Product CUREX SEX SYRUP met your expectation? Do give us feedback in our website. Thank you for shopping with us.”

পলকের মধ্যে সবটা মনে পড়ে গেল অভিজিৎবাবুর। নিজের বৈবাহিক জীবন খুব একটা ভালো কাটছিল না বলেই উত্তেজনা বাড়ানোর একটা সিরাপ Order দিয়েছিলেন উনি। সেটাই সম্ভবত ওঁর স্ত্রী খাওয়ার পর দিয়েছিলেন গ্লাস এ করে। এও মনে পড়ল Syrup টার একটা Side Effect রয়েছে। Sudden Amnesia বা আকস্মিক স্মৃতিভ্রম।

উনি যেখানে দাঁড়িয়ে ছিলেন তার ঠিক পাশেই রয়েছে একটা পুকুর। পুকুরের দিকে তাকিয়েই স্ত্রীর গলায় দাগ এর কারন টাও পরিস্কার হল অভিজিৎ সরকার এর। পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া যে এত তীব্র হবে তা উনি ভাবতেই পারেন নি। হাত এর ফোনটা বেজে উঠল এই সময়। পুকুরের জলে তখন শুধু দেখা যাচ্ছে একটা ফোনের প্রতিবিম্ব।
——
এটি বাস্তবিকভাবে অবাস্তব একটি কল্পনার ফসল। কোনো মৃত বা অর্ধমৃত ব্যক্তির সাথে মিল থাকলে সেটা সৌভাগ্যজনক বলেই বিবেচিত হবে।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

Post navigation


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: